পাবজি খেলার সময় প্রেমিকার ফোন ধরায় বন্ধুদের কাছে মার খেল সোহেল

স্মার্টফোন চালায় কিন্তু পাবজি খেলে না, এমন ছেলেপেলে আজকাল খুঁজে পাওয়া ভার। তো পাবজি খেলার সময় কখন কোনদিক দিয়ে কে হামলা করে বসে থাকবে সেটার তো কোন ইয়ত্তা নাই। তাই একথা বলাই বাহুল্য যে সে সময় চোখ-কান, নাক-মুখ সব খোলা রাখাই উত্তম।

কিন্তু যারা আবার সোহেলের মত প্রেমিকপুরুষ, তাদের আবার পাবজি খেলায় হরহামেশা ছেদ পড়তেই পারে। পাবজি খেলার মাঝে হুট করে নিজের প্রেমিকার কল রিসিভ না করলে সে অনেক কিছুই ভাবতে পারে যে আমার বয়ফ্রেন্ড আবার অন্য কোন মেয়ের সাথে ডেটে গেল কিনা, সে আবার অন্য কারো সংস্পর্শে এসে গা গরম করতে ব্যস্ত কিনা আরো কত কি! সোহেলের প্রেমিকাও এমন বড্ড সন্দেহপ্রবণ। তাই টয়লেটে অবস্থান করলেও সে সময় তার প্রেমিকার ফোন আসলে শৌচকার্য অসমাপ্ত রেখেই তার কল রিসিভ করতে ছুটতে হয়। তো গতকাল-ও এরকম-ই ঘটল। স্কোয়াডের অন্য সদস্যদের সাথে বসে পাবজি খেলার সময় হঠাৎ তার প্রেমিকার কল আসল। সে সময় এই কল রিসিভ করা মানে চলমান গেম জলাঞ্জলি দেয়া। কিন্তু প্রেমিকার কল বলে কথা। তাই পাবজি রেখে সে তা রিসিভ করল। ফলে গোটা ম্যাচের বারোটা বেজে গেল।


পরদিন সোহেলকে এলাকার চায়ের দোকানের সামনে পেয়েই তার পাবজি স্কোয়াডের অন্য সদস্যরা তাকে ধুমায়ে প্রহার করল। সেই প্রহারের সুবাদে এখন সোহেল শয্যাশায়ী। তাই পাবজি এবং প্রেমিকা কোনটি বেশি গুরুত্বপূর্ণ তা বুঝেশুনে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন কিন্তু!!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *